একাত্তর টেলিভিশনের বিরুদ্ধে নুরের বক্তব্য প্রত্যাহারের আহ্বান ডিইউজের

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক নুরের ‘একাত্তর টেলিভিশন বয়কটের ডাক’ দেওয়াযর ঘটনায় গভীর উদ্বেগ ও তীব্র নিন্দা জানিয়েছে ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন (ডিইউজে)।

বুধবার (১৪ অক্টোবর) সংগঠনটির সভাপতি কুদ্দুস আফ্রাদ ও সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদ আলম খান তপু এক বিবৃতিতে এ নিন্দা জানান।

বিবৃতিতে তারা বলেন, কোনও টেলিভিশনের টকশো’র আমন্ত্রণ তিনি প্রত্যাখ্যান করতে পারেন। কিন্তু সেই টেলিভিশনকে বয়কট করার জন্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নুর যেভাবে নোংরা তৎপরতা চালিয়েছেন, তা কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়। একাত্তর টিভির ফোন নম্বর ফেসবুকে শেয়ার করে তিনি গর্হিত অপরাধ করেছেন। সেই নম্বরে প্রতিক্রিয়াশীল মৌলবাদী চক্র ক্রমাগতভাবে অশ্লীল বক্তব্য ও হুমকি দিয়ে যাচ্ছে। নুর এ ঘটনায় স্বাধীন গণমাধ্যমের জন্য হুমকি হিসেবে চিহ্নিত হচ্ছেন।

ডিইউজে নেতারা বলেন, একাত্তর টেলিভিশনের বিরুদ্ধে নুরুল হক নুরের আহ্বান থেকে সরে এসে প্রকাশ্যে ক্ষমা প্রার্থনা না করলে তাকে গণমাধ্যমের শত্রু হিসেবে চিহ্নিত করা হবে।

আরও পড়ুন:

জাতিসংঘের মানবাধিকার পরিষদের সদস্য হিসেবে পুনর্নির্বাচিত পাকিস্তান

পাবলিক ভয়েস টোয়েন্টিফোর
প্রকাশিত: ৭:০২ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১৪, ২০২০
জাতিসংঘের মানবাধিকার পরিষদের সদস্য হিসেবে পুনর্নির্বাচিত পাকিস্তান
জাতিসংঘের মানবাধিকার পরিষদ-ইউএনএইচআরসি’র সদস্য হিসেবে পুনর্নির্বাচিত হয়েছে পাকিস্তান। ইউএন সাধারণ অধিবেশনের সদস্যদের ১৯৩টি ভোটের মধ্যে ১৬৯টি পেয়ে দেশটি ফের সদস্যপদ অর্জন করে।

মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে এ তথ্য নিশ্চিত করেছে পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। তাতে জানানো হয়, এশিয়া-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের চারটি সদস্য পদের জন্য পাঁচটি দেশ ভোটে লড়েছিল। তাতে পাকিস্তান সর্বোচ্চ ভোট পায়।

পাকিস্তান ২০১৮ সালের জানুয়ারি থেকে ইউএনএইচসিআরসি’র সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছে। ২০০৬ সালে জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক সর্বোচ্চ পরিষদের প্রতিষ্ঠার পর এই নিয়ে পঞ্চমবারের মতো এর সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হলো দেশটি।

মঙ্গলবার ৪৭ সদস্যের এই পরিষদের ১৫টি শূন্যপদে নির্বাচনের আয়োজন করে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদ। নির্বাচনের এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের হয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করা সৌদি আরবের ভরাডুবি হয়েছে। সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হয়েছে শক্তিশালী দুই দেশ চীন ও রাশিয়া।

মানবাধিকার পরিষদে পাকিস্তানের পুনর্নির্বাচিত ‘গুরুত্বপূর্ণ অর্জন’ হিসেবে উল্লেখ করেছেন দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কুরেশি।