যুদ্ধে আমাদের ‘ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি’ হয়েছে : স্বীকারোক্তি আর্মেনিয়ার প্রধানমন্ত্রীর

নাগোরনো-কারাবাখ নিয়ে আজারবাইজানের সঙ্গে চলা যুদ্ধে নিজেদের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির কথা স্বীকার করেছেন আর্মেনিয়ার প্রধানমন্ত্রী নিকোল পাশিনিয়ান। চলমান সংঘাতে আর্মেনিয়ার সেনাবাহিনীর অনেকে হতাহত হয়েছেন বলে স্বীকার করেছেন তিনি।

বুধবার টেলিভিশনে প্রচারিত হওয়া এক ভাষণে পাশিনিয়ান বলেন, আমি আমাদের সব ভুক্তভোগী, তাদের পরিবার, অভিভাবক, বিশেষ করে মৃতদের মায়েদের উদ্দেশ্যে নতজানু হয়ে সম্মান জানাই। তাদের এই ক্ষতিকে আমি আমার ও আমার পরিবারের ব্যক্তিগত ক্ষতি হিসেবে বিবেচনা করছি।

তিনি আরও বলেন, জনশক্তি ও উপকরণের ক্ষয়ক্ষতি হলেও আর্মেনিয়ার সেনারা এখনও নিয়ন্ত্রণ ধরে রেখেছে এবং প্রতিপক্ষের জনশক্তি ও উপকরণের বিপুল ক্ষয়ক্ষতি করেছে।

এদিকে দুই দেশের মধ্যে সংঘাত শুরু হওয়ার পর রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন এবং তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়েব এরদোগান বুধবার নিজেদের মধ্যে ফোনে আলোচনা করেছেন।

ক্রেমলিনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, সহিংসতা বন্ধ করার লক্ষ্যে অতি দ্রুত যৌথ উদ্যোগ নিয়ে শান্তিপূর্ণভাবে নাগোরনো-কারাবাখ দ্বন্দ্বের সমাধান করার ব্যাপারে আলোচনা করেছেন তারা।

আরও পড়ুন:

মাথাপিছু জিডিপিতে বাংলাদেশের এগিয়ে যাওয়ার খবরে ভারতে তোলপাড়

২০২০ সালে মাথাপিছু জিডিপিতে বাংলাদেশ ভারতকে ছাড়িয়ে যাবে বলে আইএমএফ’র খবরে দক্ষিণ এশিয়ার বৃহৎ দেশটিতে তোলপাড় চলছে। সামাজিক গণমাধ্যমে এ নিয়ে তুমুল আলোচনার পাশাপাশি বিরোধী রাজনীতিকরা মোদি সরকারকে তুলোধুনা করছেন।

মঙ্গলবার প্রকাশিত আইএমএফ’র রিপোর্টে বলা হয়, মাথাপিছু জিডিপির বিচারে এ বছর ভারতকে ছাড়িয়ে যাবে বাংলাদেশ। ভারতের জিডিপি ১০.৫ শতাংশ হ্রাস পেয়ে হবে ১,৮৭৭ মার্কিন ডলার। দেশটির পেছনে থাকবে শুধু পাকিস্তান ও নেপাল।

অন্যদিকে, ভারতের চেয়ে এগিয়ে যাবে বাংলাদেশ, ভুটান, শ্রীলঙ্কা ও মালদ্বীপ।

২০২০ সালে বাংলাদেশের মাথাপিছু জিডিপি ৪% বৃদ্ধি পেয়ে হবে ১,৮৮৮ মার্কিন ডলার।

এই খবরে ভারতের বিরোধী দল কংগ্রেসের নেতা রাহুল গান্ধী বিজেপি সরকারকে একহাত নিয়েছেন। তিনি বলেন, গত ছয় বছরে বিজেপি’র খাঁটি অর্জন হলো ঘৃণায় পরিপূর্ণ সংস্কৃতির জাতীয়তাবাদ। ভারতকে ছাড়িয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ।

শেয়ারবাজার বিশেষজ্ঞ ও এনাম হোলিংস-এর পরিচালক মনিশ চোখানি টুইট করেন: আজকের বিশেষ খবর। আমাদের উভয় প্রতিবেশি এগিয়ে যাচ্ছে। আমরা তাদের শুভ কামনা করি। আমাদের অর্জন আমাদের আকাঙ্ক্ষা পূর্ণ করবে বলে আশা করি।

চোখানির টুইটকে ট্যাগ করেন শেয়ারবাজারের পরিচিত মুখ সমীর অরোরা, নিলেশ শাহ, আনন্দ মহিন্দ্রা, হর্ষ গোয়েঙ্কা ও হর্ষ মারিওয়ালা।

পাঁচ বছর আগেও ভারতের মাথাপিছু জিডিপি ছিলো বাংলাদেশের চেয়ে ৪০% বেশি। গত পাঁচ বছরে বাংলাদেশ ভারতের চেয়ে তিনগুণ বেশি গতিতে এগিয়েছে। ভারতের জিডিপি প্রবৃদ্ধি যেখানে হয়েছে ৩.২% সেখানে বাংলাদেশের হয়েছে ৯.১%।